elektronik sigara

ইনশাআল্লাহ জামি‘আ রাহমানিয়া আরাবিয়া মাদরাসায় দাওয়াতুল হকের মাহফিল অনুষ্ঠিত হবে আগামী ২১শে জুমাদাল উলা, ১৪৪৪ হিজরী, ১৬ই ডিসেম্বর, ২০২২ ঈসা‘য়ী, শুক্রবার (সকাল ৭-৮টা থেকে শুরু হবে ইনশাআল্লাহ)

জামি‘আ রাহমানিয়া আরাবিয়া মাদরাসা থেকে প্রকাশিত একাডেমিক ক্যালেন্ডার পেতে ক্লিক করুন

হযরতওয়ালা দা.বা. কর্তৃক সংকলিত চিরস্থায়ী ক্যালেন্ডার ডাউনলোড করতে চাইলে এ্যাপের “সর্বশেষ সংবাদ” এ ভিজিট করুন।

হযরতওয়ালা মুফতী মনসূরুল হক সাহেব দা.বা এর লিখিত সকল কিতাব পাওয়ার জন্য এ্যাপের “সর্বশেষ সংবাদ” থেকে তথ্য সংগ্রহ করুন।

হযরতওয়ালা দা.বা. এর কিতাব অনলাইনের মাধ্যমে কিনতে চাইলে ভিজিট করুনঃ www.maktabatunnoor.com

হযরতওয়ালা মুফতী মনসূরুল হক সাহেব দা.বা. এর নিজস্ব ওয়েব সাইট www.darsemansoor.com এ ভিজিট করুন।

নামাযের মাঝখানে ইমামের উযু ভঙ্গ হলে

তারিখ : ১৪ - ফেব্রুয়ারী - ২০১৮  

জিজ্ঞাসাঃ

জামা‘আতে নামাযের সময় ইমাম সাহেবের উযু ভঙ্গ হলে ইমাম সাহেবের করণীয় কি?

 


জবাবঃ


জামা‘আতে নামায পড়ার সময় ইমাম সাহেবের উযু ভেঙ্গে গেলে ইমাম সাহেবের করণীয় হল, প্রথমে তিনি মুক্তদীদের মধ্যে যিনি ইমামতী করার উপযুক্ত তাকে প্রতিনিধি বানিয়ে দিয়ে উযু করতে যাবেন। ইমামের প্রতিনিধি মুক্তাদীদেরকে নিয়ে বাকী নামায সমাপ্ত করবেন। এদিকে ইমাম সাহেব উযু করে এসে জামা‘আত পেলে নামাযের যে অংশে বায়ু বের হয়ে উযু ভেঙ্গে গিয়েছিল, তা সহ যে সকল রাকা’আত জামা‘আতের সাথে পাননি সে রাকা‘আতগুলো কিরা’আত ব্যতীত পড়ে নিবেন। অতঃপর জামা‘আতের সাথে শরীক হবেন। আর ইতোমধ্যে জামা‘আত শেষ হয়ে গেলে একা একা কিরা‘আত ব্যতীত বাকী নামায পড়ে নিবেন। ইচ্ছা করলে উযু করে এসে নতুন ভাবেও নামায পড়তে পারবেন।


যদি মুসল্লীদের মাঝে ইমাম হওয়ার উপযুক্ত কেউ না থাকে, তাহলে উত্তম হল, ইমাম সাহেব সালামের মাধ্যমে নামায ভেঙ্গে দিয়ে উযু করে নতুনভাবে জামা‘আতের সাথে নামায পড়াবেন।[প্রমাণঃ ফাতাওয়া শামী, ১:৬০৬ # খাইরুল ফাতাওয়া, ২:৩৯৭, # তাতার খানিয়া, ১:৬৮৮]