elektronik sigara

প্রতিদিন আমল করার জন্য “দৈনন্দিন আমল ও দু‘আসমূহ” নামক একটি গুরত্বপূর্ণ কিতাব আপলোড করা হয়েছে।

হযরতওয়ালা মুফতী মনসূরুল হক সাহেব দা.বা এর সৌদি আরবের নাম্বার 05 77 58 56 34

ইনশাআল্লাহ জামি‘আ রাহমানিয়া আরাবিয়া মাদরাসায় দাওয়াতুল হকের মাহফিল অনুষ্ঠিত হবে আগামী ২৩ শে আগষ্ট, ২০১৯ ঈসায়ী।

সুখবর! সুখবর!! সুখবর!!! হযরতওয়ালা দা.বা. এর গুরত্বপূর্ণ ২ টি নতুন কিতাব বেড়িয়েছে। “নবীজীর (সা.) নামায” এবং “খ্রিষ্টধর্ম কিছু জিজ্ঞাসা ও পর্যালোচনা”।  আজই সংগ্রহ করুন।

হাজী সাহেবানদের জন্য এক নজরে হজের ৭ দিনের করণীয় ডাউনলোড করুন

হযরতওয়ালা মুফতী মনসূরুল হক সাহেব দা.বা. এর সমস্ত কিতাব, বয়ান, প্রবন্ধ, মালফুযাত পেতে   ইসলামী যিন্দেগী  App টি সংগ্রহ করুন।

হযরতওয়ালা মুফতী মনসূরুল হক সাহেব দা.বা. এর নিজস্ব ওয়েব সাইট www.darsemansoor.com এ ভিজিট করুন।

রোগাক্রান্ত গরু-ছাগলের হুকুম

তারিখ : ১৪ - ফেব্রুয়ারী - ২০১৮  

জিজ্ঞাসাঃ

কোন হাঁস-মুরগী বা গরু-ছাগল রোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর নিকটবর্তী হলে মৃত্যুর পূর্বে ঐ হাঁস-মুরগী বা গরু-ছাগল যবেহ করে খাওয়া যাবে কি-না?

 


জবাবঃ


গরু-ছাগল বা হাঁস-মুরগী বা যে কোন হালাল প্রাণী রোগের কারণে মৃত্যুমুখে পতিত হলে, মৃত্যুর পূর্বে তা শরীয়ত মুতাবেক যবেহ করে খাওয়া হালাল। যদি রোগের তীব্রতা সত্ত্বেও প্রাণীর অবস্থা এমন থাকে যে সাধারণতঃ কোন সুস্থ প্রাণী যবেহ করে ছেড়ে দিলে তার মধ্যে যে পরিমাণ হায়াত বাকী থাকে, ততটুকু জীবন এখনও  তার মধ্যে আছে, সে ক্ষেত্রে সেটা যবেহ করে খাওয়া হালাল। মোটকথা, রোগের কারণে যদি নির্জীব হয়ে পড়ে থাকে, এবং যবেহ করার পরে নড়াচড়া বা প্রবহামান রক্ত পাওয়া গেলে, হালাল হবে। যবেহ করার পরে নড়াচড়া বা প্রবাহমান রক্ত না পাওয়া গেলে এমন প্রাণী মৃত বলে গণ্য হওয়ার কারণে হারাম হবে।[প্রমাণঃ ফাতাওয়ায়ে বাযযাযিয়া ৬:৩০৫# তাবয়ীনুল হাকায়িক ৫:২৯৭]


وفي النوازل ام تحرك بعد الذبح وخرج دم مسفوح يحل وان تحرك ولم يخرج او بعكسه يحل ايضا وان عدمتا لايحل هذا اذا لم يعلم حياتها وقت الذبح فان علم يحل تحرك اولا خرج الدم او لا.     (البزازية:6/305)