elektronik sigara

হযরতওয়ালা মুফতী মনসূরুল হক সাহেব দা.বা. এর সমস্ত কিতাব, বয়ান, প্রবন্ধ, মালফুযাত পেতে   ইসলামী যিন্দেগী  App টি সংগ্রহ করুন।

প্রতিদিন আমল করার জন্য “দৈনন্দিন আমল ও দু‘আসমূহ” নামক একটি গুরত্বপূর্ণ কিতাব আপলোড করা হয়েছে।

ইনশাআল্লাহ জামি‘আ রাহমানিয়া আরাবিয়া মাদরাসায় দাওয়াতুল হকের মাহফিল অনুষ্ঠিত হবে আগামী ২০ শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ঈসায়ী।

সুখবর! সুখবর!! সুখবর!!! হযরতওয়ালা দা.বা. এর গুরত্বপূর্ণ ২ টি নতুন কিতাব বেরিয়েছে। “নবীজীর (সা.) নামায” এবং “খ্রিষ্টধর্ম কিছু জিজ্ঞাসা ও পর্যালোচনা”।  আজই সংগ্রহ করুন।

হযরতওয়ালা মুফতী মনসূরুল হক সাহেব দা.বা. এর নিজস্ব ওয়েব সাইট www.darsemansoor.com এ ভিজিট করুন।

মুহাম্মাদ ﷺ কে শ্রেষ্ঠ নবী অস্বীকার করা

তারিখ : ০২ - ফেব্রুয়ারী - ২০১৮  

 

জিজ্ঞাসা: আমাদের নবীজী মুহাম্মাদ ﷺ কে যারা শ্রেষ্ঠ নবী মানে না, তাদের শর‘ঈ হুকুম কী?


নবী হিসাবে সমস্ত নবী আ. ই সমান। কিন্তু মর্যাদার দিক দিয়ে পরস্পরের মধ্যে পার্থক্য রয়েছে। আল্লাহ তা‘আলা পবিত্র কুরআনে ইরশাদ করেন, ‘এই রাসূলগণ, তাহাদের মধ্যে কাউকে কারোর উপর শ্রেষ্ঠত্ব দান করেছি।’ আর ইজমা দ্বারা এ কথা প্রমাণিত যে, আমাদের নবীজী সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়া সাল্লাম মর্যাদার দিক দিয়ে সর্বশ্রেষ্ঠ ছিলেন। অতএব, বিনা বাক্যব্যয়ে এ কথা মেনে নেয়া প্রত্যেক মুসলিমের দায়িত্ব। যদি কেউ শেষ নবীর শ্রেষ্ঠত্বকে অস্বীকার করে, তাহলে ইজমাকে অস্বীকার করার কারণে ফাসিক বলে গণ্য হবে।


(প্রমাণ: সূরা বাকারা: ২৫৩, সহীহ মুসলিম হাদীস নং-২২৭৮, আততাফসীরুল কাবীর: ৬/১৭৪, শরহে মুসলিম নববী: ১৫/৩৫, রদ্দুল মুহতার: ৪/২২৩)