elektronik sigara

জামি‘আ রাহমানিয়া আরাবিয়া মাদরাসা থেকে প্রকাশিত একাডেমিক ক্যালেন্ডার পেতে ক্লিক করুন

হযরতওয়ালা দা.বা. কর্তৃক সংকলিত চিরস্থায়ী ক্যালেন্ডার ডাউনলোড করতে চাইলে এ্যাপের “সর্বশেষ সংবাদ” এ ভিজিট করুন।

হযরতওয়ালা মুফতী মনসূরুল হক সাহেব দা.বা এর লিখিত সকল কিতাব পাওয়ার জন্য এ্যাপের “সর্বশেষ সংবাদ” থেকে তথ্য সংগ্রহ করুন।

হযরতওয়ালা দা.বা. এর কিতাব অনলাইনের মাধ্যমে কিনতে চাইলে ভিজিট করুনঃ www.maktabatunnoor.com

হযরতওয়ালা মুফতী মনসূরুল হক সাহেব দা.বা. এর নিজস্ব ওয়েব সাইট www.darsemansoor.com এ ভিজিট করুন।

নামাযে হুযূর সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর নাম পড়লে দরূদ পড়ার হুকুম

তারিখ : ১৪ - ফেব্রুয়ারী - ২০১৮  

জিজ্ঞাসাঃ

“সূরা ফাতহ”-এর ২৯ নং আয়াতের শুরুতে মুহাম্মাদুর রাসূলুল্লাহ শব্দ আছে। এখন প্রশ্ন হল- ইমাম সাহেব যদি উক্ত আয়াত নামাযের মধ্যে তিলাওয়াত করেন, আর যদি দরুদ পড়ে ফেলেন, তখন তার হুকুম কি?


জবাবঃ


ইমাম সাহেব নামাযের মধ্যে উক্ত আয়াত পাঠ করলে, ইমাম সাহেব বা মুক্তাদীগণ কেউ দরুদ শরীফ পড়বেন না। যদি কেউ পড়ে ফেলেন তাহলে তার নামায ফাসিদ হবে না। (প্রমাণঃ আহসানুল ফাতাওয়া ৩:৪৩৩)


তবে শুধু (নামায ছাড়া) তিলাওয়াতের সময় কেউ উক্ত আয়াত তিলাওয়াত করলে বা শুনলে দরুদ শরীফ পড়তে পারে।


তবে যিনি তিলাওয়াত করেন, তার জন্য উত্তম হল তিলাওয়াত শেষে দরুদ শরীফ পড়ে নেয়া। (প্রমাণঃ ফাতাওয়া শামী ১:৫১৯ পৃঃ# খাইরুল ফাতাওয়া ১:২৬৫)


ولو سمع اسم النبي صلى الله عليه وسلم وهو يقرأ لا يجب ان يصلي وان فعل ذلك تعد فراغه من القرآن فهو حسن كذا في الينابيع.  (ردالمحتار:1/519)