elektronik sigara

হযরতওয়ালা মুফতী মনসূরুল হক সাহেব দা.বা. এর সমস্ত কিতাব, বয়ান, প্রবন্ধ, মালফুযাত পেতে   ইসলামী যিন্দেগী  App টি সংগ্রহ করুন।

প্রতিদিন আমল করার জন্য “দৈনন্দিন আমল ও দু‘আসমূহ” নামক একটি গুরত্বপূর্ণ কিতাব আপলোড করা হয়েছে।

ইনশাআল্লাহ জামি‘আ রাহমানিয়া আরাবিয়া মাদরাসায় দাওয়াতুল হকের মাহফিল অনুষ্ঠিত হবে আগামী ২০ শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ঈসায়ী।

সুখবর! সুখবর!! সুখবর!!! হযরতওয়ালা দা.বা. এর গুরত্বপূর্ণ ২ টি নতুন কিতাব বেরিয়েছে। “নবীজীর (সা.) নামায” এবং “খ্রিষ্টধর্ম কিছু জিজ্ঞাসা ও পর্যালোচনা”।  আজই সংগ্রহ করুন।

হযরতওয়ালা মুফতী মনসূরুল হক সাহেব দা.বা. এর নিজস্ব ওয়েব সাইট www.darsemansoor.com এ ভিজিট করুন।

ত্রিশ হাজার যাহেরী ও ষাট হাজার বাতেনী কালামের বাস্তবতা

তারিখ : ১৪ - ফেব্রুয়ারী - ২০১৮  

জিজ্ঞাসাঃ

অনেক লোক বলে কালাম নব্বই হাজার । ত্রিশ হাজার যাহেরী ও ষাট হাজার বাতেনী । কথাটা কতটুকু সত্য ?

 


জবাবঃ


নব্বই হাজার কালামের কথাটি সম্পূর্ণ মিথ্যা । কুরআন হাদীসে এর কোন প্রমাণ নেই । বস্তুতঃ নব্বই হাজার কালামের ব্যাপারটা হলো- ইসলামের নামে একটি ভ্রান্ত বাতিল ফেরকা আছে, তাদেরকে বলা হয় শি‘আ । তারা এ ধরনের বহু আজগুবি কথা হযরত আলী রাঃ এর নামে প্রচার করে থাকে যে, এ বাতেনী কালাম নবী সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহী ওয়া সাল্লাম হযরত আলী রা. কে শিক্ষা দিয়েছিলেন । অথচ এগুলো একেবারেই মিথ্যা । হযরত আলীকে রা. তাঁর হায়াতে লোকেরা এ বিষয়ে জানতে চেয়েছিল । তিনি পরিষ্কারভাবে উত্তর দিয়েছিলেন যে, “যেই কুরআন সকলের নিকট আছে ঐ কুরআনের বাইরে তাঁর কাছে কোন কালাম নেই ।”


তাছাড়া আমাদের দেশে তাসাউফের ব্যবসায়ী একদল ভন্ড পীর-ফকির আছে, তারা এরূপ কথা বলে থাকে যে, আমাদের এসব কথা আলেমরা বুঝে না । কারণ তারা বাতেনী কালাম সম্পর্কে কিছুই জানে না। তাই আলেমগণ আমাদের বিরোধিতা করেন । মোদ্দাকথা বর্ণিত কথার কোন দলীল নেই ।


বাতিল ও ভন্ড লোকেরা তাদের মনগড়া মতবাদকে জাহিলদের মধ্যে চালু করার জন্য এ ধরনের অনেক আজগুবি কথার জন্ম ‍দিয়েছে । [প্রমাণ: খইরুল  ফাতওয়া ১ : ২৯৩]