elektronik sigara

আগামী ইজতেমা ২০শে জুমাদাল উখরা, ১৪৪৪ হিজরী ‍মুতাবেক ১৩ই জানুয়ারী, ২০২৩ ঈসায়ী তারিখ শুক্রবার থেকে ২২শে জুমাদাল উখরা, ১৪৪৪ হিজরী মুতাবেক ১৫ই জানুয়ারী, ২০২৩ ঈসায়ী তারিখ রবিবার পর্যন্ত চলবে। অর্থাৎ ১৩,১৪,১৫ জানুয়ারী, ২০২৩। ইজতেমার ময়দানের ম্যাপ ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন

 

ইনশাআল্লাহ জামি‘আ রাহমানিয়া আরাবিয়া মাদরাসায় দাওয়াতুল হকের মাহফিল অনুষ্ঠিত হবে আগামী ২৬শে জুমাদাল উখরা, ১৪৪৪ হিজরী, ২০ই জানুয়ারী, ২০২৩ ঈসা‘য়ী, শুক্রবার (সকাল ৭-৮টা থেকে শুরু হবে ইনশাআল্লাহ)

হযরতওয়ালা দা.বা. কর্তৃক সংকলিত চিরস্থায়ী ক্যালেন্ডার ডাউনলোড করতে চাইলে এ্যাপের “সর্বশেষ সংবাদ” এ ভিজিট করুন।

হযরতওয়ালা মুফতী মনসূরুল হক সাহেব দা.বা এর লিখিত সকল কিতাব পাওয়ার জন্য এ্যাপের “সর্বশেষ সংবাদ” থেকে তথ্য সংগ্রহ করুন।

হযরতওয়ালা দা.বা. এর কিতাব অনলাইনের মাধ্যমে কিনতে চাইলে ভিজিট করুনঃ www.maktabatunnoor.com

হযরতওয়ালা মুফতী মনসূরুল হক সাহেব দা.বা. এর নিজস্ব ওয়েব সাইট www.darsemansoor.com এ ভিজিট করুন।

জুমু‘আর সানী আযান বাইরে হবে না ভিতরে

তারিখ : ১৪ - ফেব্রুয়ারী - ২০১৮  

জিজ্ঞাসাঃ

জুমু‘আর সানী আযান প্রসঙ্গে অনেকে বলেন এই আযান বাইরে হবে। এ নিয়ে দেশের অনেক জায়গায় বিশৃঙ্খলা দেখা দিয়েছে। কুরআন ও হাদীসের আলোকে বিস্তারিত জানাবেন।

 


জবাবঃ


রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়া সাল্লাম- এর যুগ থেকে দ্বিতীয় খলিফা হযরত উমর ফারুক রা.-এর যুগ পর্যন্ত জুমু‘আর নামাযের জন্য অন্যান্য নামাযের ন্যায় একটি আযানের প্রচলন ছিল। অতঃপর হযরত উসমান রা.-এর খেলাফত কালে দ্বিতীয় আরেকটি আযান (যা বর্তমানে প্রথম আযান) মদীনার যাওরা নামক স্থানে দেওয়া হয়। উক্ত স্থানে এ আযান দেয়ার পর প্রথম যুগের আযানটি (যা বর্তমানে দ্বিতীয় আযান) মিম্বরের নিকট খতিবের সম্মুখে দেয়া শুরু করেন। হযরত উসমান রা. সাহাবায়ে কেরামের সাথে পরামর্শ করে এর প্রচলন করেছিলেন। সুতরাং এতে প্রমাণিত হয় জুমু‘আর নামাযের সানী আযান মিম্বরের নিকট খতিবের সম্মুখে দেয়া সাহাবায়ে কেরামের ইজমা দ্বারা প্রমাণিত।


আর যারা বলে জুমু‘আর সানী আযান মসজিদের বাইরে দিতে হবে তাদের এ দাবী বিভ্রান্তিকর, দলীল বিহীন, মনগড়া ও পরিত্যাজ্য। [হিদায়া ১:১৭১ পৃঃ # আহকামুল কুরআন, ইবনুল আরাবী ৪:২৪৭ # ফাতাওয়ায়ে আলমগীরী ১:১৪৯ # দুররুল মুখতার ৩:৩৮ # আহসানুল ফাতাওয়া ২:২৯৪]


واذا صعد الامام المنبر أذن المؤذنون بين يدى المنبر بذالك جرى التوارث (من زمن عثمان رضى الله تعالى عنه).  [الهداية – 1/171