elektronik sigara

জামি‘আ রাহমানিয়া আরাবিয়া মাদরাসা থেকে প্রকাশিত একাডেমিক ক্যালেন্ডার পেতে ক্লিক করুন

রজব মাস শুরু হলেই প্রিয় নবী এই দু‘আ খুব বেশী করে পড়তেন: اَللّهُمَّ بَارِكْ لَنَا  فِيْ  رَجَبَ  وَشَعْبَانَ  وَبَلِّغْنَا رَمَضَانَ

হযরতওয়ালা দা.বা. কর্তৃক সংকলিত চিরস্থায়ী ক্যালেন্ডার ডাউনলোড করতে চাইলে এ্যাপের “সর্বশেষ সংবাদ” এ ভিজিট করুন।

হযরতওয়ালা মুফতী মনসূরুল হক সাহেব দা.বা এর লিখিত সকল কিতাব পাওয়ার জন্য এ্যাপের “সর্বশেষ সংবাদ” থেকে তথ্য সংগ্রহ করুন।

হযরতওয়ালা মুফতী মনসূরুল হক সাহেব দা.বা. এর সমস্ত কিতাব, বয়ান, প্রবন্ধ, মালফুযাত পেতে ইসলামী যিন্দেগী  App টি সংগ্রহ করুন।

প্রতিদিন আমল করার জন্য “দৈনন্দিন আমল ও দু‘আসমূহ” নামক একটি গুরত্বপূর্ণ কিতাব আপলোড করা হয়েছে।

হযরতওয়ালা দা.বা. এর কিতাব অনলাইনের মাধ্যমে কিনতে চাইলে ভিজিট করুনঃ www.maktabatunnoor.com

হযরতওয়ালা মুফতী মনসূরুল হক সাহেব দা.বা. এর নিজস্ব ওয়েব সাইট www.darsemansoor.com এ ভিজিট করুন।

খুৎবার পূর্বে বাংলায় ওয়ায করা ও খুৎবার তরজমা করা

তারিখ : ১৪ - ফেব্রুয়ারী - ২০১৮  

জিজ্ঞাসাঃ

খুৎবাতুল আহকামে খুৎবা পড়ার নিয়মের মধ্যে লিখা আছে, জুম‘আর খুৎবার পূর্বে খুৎবার বিষয়বস্তু স্থানীয় ভাষায়, যেমন বাংলায় তরজমা শুনানো বিদ‘আত। কিন্তু প্রায় সকল মসজিদেই জুম‘আর খুৎবার পূর্বে স্থানীয় ভাষার খুৎবার তরজমা শুনানো হয়। এটা কতটুকু শরী‘আত সম্মত জানতে চাই।


জবাবঃ


জুম‘আর দিন খুৎবার পূর্বে মিম্বর থেকে দূরে দাঁড়িয়ে বা চেয়ারে বসে কিছুক্ষণ দীনী আলোচনা করা এবং ওয়ায নসীহত করা চাই। অনেক সাহাবা রাযি. থেকে এর প্রমাণ মিলে। বিশেষ করে হযরত উমর ফারুক রাযি. এর যামানায় খুৎবার পূর্বে হযরত আবূ হুরাইরা রাযি. ও তামীমে দারী রাযি. মিম্বর থেকে দূরে সরে বয়ান করতেন। অতঃপর হযরত উমর রাযি. খুৎবা দেয়ার জন্য উপস্থিত হলে তারা বয়ান বন্ধ করে দিতেন। খুলাফায়ে রাশেদীন এর যুগে তাদের নির্দেশে হওয়ায় এটাকে বিদ‘আত বা নাজায়িয বলার অবকাশ নাই। তবে আরবীতে খুৎবা পড়ে খুৎবার সাথে সাথে বা খুৎবার শেষে তার তরজমা স্থানীয় ভাষায় করা এটা শরী‘আতে নিষেধ। আর এটাকেই খুৎবাতুল আহকামে বিদ‘আত বলা হয়েছে। খুৎবার পূর্বে ওয়ায করাকে বিদ‘আত বলা হয় নাই।


(প্রমাণঃ শামী ১:৪৮৪, ৫:১১৯# ইমদাদুল আহকাম ১:৬৫৯, # দারুল উলূম খুৎবাতুল আহকাম ২পৃঃ)