elektronik sigara

সুখবর! সুখবর!! সুখবর!!! হযরতওয়ালা দা.বা. এর গুরত্বপূর্ণ ২ টি নতুন কিতাব বেড়িয়েছে। “নবীজীর (সা.) নামায” এবং “খ্রিষ্টধর্ম কিছু জিজ্ঞাসা ও পর্যালোচনা”।  আজই সংগ্রহ করুন।

হযরতওয়ালা দা.বা. এর কিতাব অনলাইনের মাধ্যমে কিনতে চাইলে ভিজিট করুনঃ www.maktabatunnoor.com

হযরতওয়ালা মুফতী মনসূরুল হক দা.বা. এর সমস্ত কিতাব, বয়ান, প্রবন্ধ, মালফুযাত পেতে   ইসলামী যিন্দেগী  App টি সংগ্রহ করুন।

হযরতওয়ালা মুফতী মনসূরুল হক দা.বা. এর নিজস্ব ওয়েব সাইট www.darsemansoor.com এ ভিজিট করুন।

এক মুষ্টির কম দাঁড়ি রাখে এমন ব্যক্তির ইমামতী

তারিখ : ১৪ - ফেব্রুয়ারী - ২০১৮  

জিজ্ঞাসাঃ

আমি কোন এক মসজিদে নামায পড়তে যাই। ইতিমধ্যে দুই রাকা‘আত নামায চলেও গেছে। আমি তখন ইমাম সাহেবকে দেখি তার দাঁড়ি এক মুষ্টির কিছু কম, পরনে ছিল লুঙ্গি ও শার্ট। আমি তার পেছনে নামায পড়ে নেই। এখন আমার প্রশ্ন হল-

(১) এই ইমামের পিছনে নামায পড়া ঠিক হয়েছে কি-না ?

(২) আবার অনেক সময় দেখা যায় নামাযের সময় চলে যাচ্ছে এ জন্য তাড়াতাড়ি করে মসজিদে গেলাম জামা‘আত ধরার জন্য। গিয়ে দেখি অযোগ্য লোক ইমামতী করছে। তখন কি করব ? এই ইমামের পিছনে কি নামায পড়ব ? জামা‘আতে নামায পড়া জরুরী বেশী ? নাকি জামা‘আত ত্যাগ করে একা একা পড়ে নিব ?

 


জবাবঃ


শরী‘আতের দৃষ্টিতে দাঁড়ি রাখা ওয়াজিব। যাদের দাঁড়ি লম্বা হয় তাদের দাঁড়ির তিন দিকেই এক মুষ্টি পরিমাণ দাঁড়ি রাখা ওয়াজিব।


যদি কোন ব্যক্তি দাঁড়ি ছেঁটে-কেটে এক মুষ্টির কম করে রাখে, তাহলে সে ব্যক্তি ফাসিক গণ্য হবে। আর ফাসিক ব্যক্তির ইমামতী মাকরূহে তাহরীমী। তার পিছে নামায পড়াও মাকরূহে তাহরীমী। যদি কোন ব্যক্তি এ ধরনের ইমামের পিছনে ঘটনাক্রমে নামায পড়ে ফেলে, তাহলে নামায হয়ে যাবে। ঐ নামায দোহরাতে হবে না। এরূপ ক্ষেত্রে একা নামায না পড়ে এ ধরনের ইমামের পিছনে জামা‘আতে শরীক হবে এটাই কর্তব্য।