elektronik sigara

হযরতওয়ালা মুফতী মনসূরুল হক সাহেব দা.বা. এর সমস্ত কিতাব, বয়ান, প্রবন্ধ, মালফুযাত পেতে   ইসলামী যিন্দেগী  App টি সংগ্রহ করুন।

প্রতিদিন আমল করার জন্য “দৈনন্দিন আমল ও দু‘আসমূহ” নামক একটি গুরত্বপূর্ণ কিতাব আপলোড করা হয়েছে।

ইনশাআল্লাহ জামি‘আ রাহমানিয়া আরাবিয়া মাদরাসায় দাওয়াতুল হকের মাহফিল অনুষ্ঠিত হবে আগামী ২০ শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ঈসায়ী।

সুখবর! সুখবর!! সুখবর!!! হযরতওয়ালা দা.বা. এর গুরত্বপূর্ণ ২ টি নতুন কিতাব বেরিয়েছে। “নবীজীর (সা.) নামায” এবং “খ্রিষ্টধর্ম কিছু জিজ্ঞাসা ও পর্যালোচনা”।  আজই সংগ্রহ করুন।

হযরতওয়ালা মুফতী মনসূরুল হক সাহেব দা.বা. এর নিজস্ব ওয়েব সাইট www.darsemansoor.com এ ভিজিট করুন।

ইমাম সাহেবের মেহরাব ব্যতীত অন্যস্থানে দাঁড়ানো

তারিখ : ১৪ - ফেব্রুয়ারী - ২০১৮  

জিজ্ঞাসা:

ইমাম সাহেব জামা’আতে নামায পড়ানোর সময় মেহরাব ছেড়ে অন্য কোন স্থানে (মসজিদের ভিতরেই) দাঁড়িয়ে জামা’আতের নামাযের ইমামতী করতে পারবেন কি-না?


জবাব:


ইমামের জন্য মেহরাবের একদম ভিতরে দাঁড়ানো সুন্নাত নয়। বরং অপারগতা ছাড়া এরূপ দাঁড়ানো মাকরূহ্। সুন্নাত হলো, ইমাম সাহেব কাতারের এ রকম মাঝে দাড়ানো যাতে করে উভয় পার্শ্বে মুসল্লীদের সংখ্যা সমান থাকে। যেহেতু মেহরাব কাতারের মাঝে বানানো হয়; সেহেতু মেহরাবে নামাযের স্থানে দাঁড়ালে কাতারের মাঝে দাঁড়ানোর এ সুন্নাত আদায় হয়ে যায়। অন্যথায় মেহরাবে দাঁড়ানো পৃথক কোন সুন্নাত নয়। সুতরাং ইমাম সাহেব জামা’আতে নামায পড়ানোর সময় মেহরাব ব্যতীত অন্যস্থানে দাঁড়িয়ে নামায পড়াতে পারবে। তবে শর্ত হলো, ইমাম সাহেবকে এমনভাবে দাঁড়াতে হবে যাতে করে তাঁর দু’পার্শ্বে মুসল্লী বরাবর হয় এবং কোনদিকে মুসল্লী কম বেশী না হয়ে যায়। বর্তমানে ডানদিকে কাতার বড় করা বা মুসল্লী সংখ্যা বৃদ্ধি করার যে প্রচলন আছে তা সহীহ্ নয়। [প্রমাণ: শামী ১:৫৬৮ # আলমগীরী ১:৮৯]