elektronik sigara

সুখবর! সুখবর!! সুখবর!!! হযরতওয়ালা দা.বা. এর গুরত্বপূর্ণ ২ টি নতুন কিতাব বেড়িয়েছে। “নবীজীর (সা.) নামায” এবং “খ্রিষ্টধর্ম কিছু জিজ্ঞাসা ও পর্যালোচনা”।  আজই সংগ্রহ করুন।

হযরতওয়ালা দা.বা. এর কিতাব অনলাইনের মাধ্যমে কিনতে চাইলে ভিজিট করুনঃ www.maktabatunnoor.com

হযরতওয়ালা মুফতী মনসূরুল হক দা.বা. এর সমস্ত কিতাব, বয়ান, প্রবন্ধ, মালফুযাত পেতে   ইসলামী যিন্দেগী  App টি সংগ্রহ করুন।

হযরতওয়ালা মুফতী মনসূরুল হক দা.বা. এর নিজস্ব ওয়েব সাইট www.darsemansoor.com এ ভিজিট করুন।

ইফতারে বিলম্ব করা

তারিখ : ১৪ - ফেব্রুয়ারী - ২০১৮  

জিজ্ঞাসাঃ

(ক) রোযা কখন কার উপর ফরয হয়?

(খ) রামাযানের ইফতারের জন্য মাগরিবের আযানের পর দেরী করাতে কোন অুসবিধা আছে কি-না? আযান চলাকালীন অবস্থায় ইফতার করা যাবে কি-না?


জবাবঃ


(ক) বালেগ হওয়ার পর থেকেই প্রত্যেক ছেলে ও মেয়ের উপর রোযা ফরয হয়। তবে বাচ্চাদের রোযার ব্যাপারে অভ্যস্ত হওয়ার জন্য শারীরিক ক্ষমতা এসে গেলে, বালেগ হওয়ার পূর্বেই রোযা রাখার হুকুম করা এবং রোযা রাখতে অভ্যস্ত করা বাবা-মায়ের দায়িত্ব।


(খ) ইফতারের নির্ধারিত সময় নিশ্চিত হওয়ার পরে দেরী করা ঠিক না। উজর ব্যতিরেকে ইফতারের সময় হওয়ার পরে দেরী করা মাকরূহ। ওয়াক্ত হওয়ার পর মাগরিবের আযান যখন দেয়া হয়, তখন আযান চলাকালীন সময়েও ইফতার করাতে কোন দোষ নেই।


আবার যদি কোন মসজিদে ওয়াক্ত হওয়ার পরও মাগরিবের আযান দিতে বিলম্ব করতে থাকে, তখন ওয়াক্ত হওয়ার পর আযানের আগে ইফতার করাতে কোন অসুবিধা নেই। কিন্তু সূর্যোস্তের পূর্বে ইফতার করলে রোযা ভেঙ্গে যাবে।[প্রমাণঃ ফাতাওয়া রহীমিয়া ৩:১০৭# জাওয়াহিরুল ফাতাওয়া ১:১১-১২]