elektronik sigara

জামি‘আ রাহমানিয়া আরাবিয়া মাদরাসা থেকে প্রকাশিত একাডেমিক ক্যালেন্ডার পেতে ক্লিক করুন

রজব মাস শুরু হলেই প্রিয় নবী এই দু‘আ খুব বেশী করে পড়তেন: اَللّهُمَّ بَارِكْ لَنَا  فِيْ  رَجَبَ  وَشَعْبَانَ  وَبَلِّغْنَا رَمَضَانَ

হযরতওয়ালা দা.বা. কর্তৃক সংকলিত চিরস্থায়ী ক্যালেন্ডার ডাউনলোড করতে চাইলে এ্যাপের “সর্বশেষ সংবাদ” এ ভিজিট করুন।

হযরতওয়ালা মুফতী মনসূরুল হক সাহেব দা.বা এর লিখিত সকল কিতাব পাওয়ার জন্য এ্যাপের “সর্বশেষ সংবাদ” থেকে তথ্য সংগ্রহ করুন।

হযরতওয়ালা মুফতী মনসূরুল হক সাহেব দা.বা. এর সমস্ত কিতাব, বয়ান, প্রবন্ধ, মালফুযাত পেতে ইসলামী যিন্দেগী  App টি সংগ্রহ করুন।

প্রতিদিন আমল করার জন্য “দৈনন্দিন আমল ও দু‘আসমূহ” নামক একটি গুরত্বপূর্ণ কিতাব আপলোড করা হয়েছে।

হযরতওয়ালা দা.বা. এর কিতাব অনলাইনের মাধ্যমে কিনতে চাইলে ভিজিট করুনঃ www.maktabatunnoor.com

হযরতওয়ালা মুফতী মনসূরুল হক সাহেব দা.বা. এর নিজস্ব ওয়েব সাইট www.darsemansoor.com এ ভিজিট করুন।

আপনজনের ইন্তেকালে সমবেদনা

তারিখ : ১৪ - ফেব্রুয়ারী - ২০১৮  

জিজ্ঞাসাঃ

আপনজন মারা গেলে অনেকে অধৈর্য হয়ে যায়, পেরেশান হয়ে যায়। তাদেরকে সান্তনা দেয়ার ব্যাপারে রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়াসাল্লাম-এর পক্ষ থেকে কোন বাণী আছে কিনা? জানালে কৃতজ্ঞ থাকবো।


জবাবঃ


মৃত ব্যক্তির আপনজনের প্রতি সান্তনা ও সমবেদনা প্রকাশ করার ব্যাপারে রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়াসাল্লাম-এর থেকে হাদীস বর্ণিত আছে। হযরত মু‘আয ইবনে জাবাল রাযি. থেকে বর্ণিত আছে যে, তার এক পুত্র সন্তান মারা গেলে নবী করীম সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়াসাল্লাম এই সমবেদনা পত্র লিখেন:


বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহীম


আল্লাহর রাসূল মুহাম্মদসাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়াসাল্লাম-এর পক্ষ থেকে মু‘আয ইবনে জাবালের নামে। তোমার উপর শান্তি বর্ষিত হোক। আমি তোমার কাছে আল্লাহর প্রশংসা করছি, যিনি ছাড়া কোন মা‘বূদ নাই। তারপর এই কামনা করছি যে, আল্লাহ যেন তোমাকে বিরাট বিনিময় দান করেন এবং ধৈর্য ধারন ও আল্লাহর শুকরিয়া আদায় করার তাওফীক দান করেন। আমাদের জীবন, আমাদের ধন-সম্পদ এবং আমাদের পরিবার-পরিজনে আল্লাহ সুখ দান করেন এবং জীবন আল্লাহ প্রদত্ত ক্ষণস্থায়ী আমানত। (তোমার পুত্রও একটি আমানত বিশেষ ছিল) আল্লাহ তোমাকে তার দ্বারা খুশী এবং ঈর্ষণীয় সুখ দান করেছেন এবং এখন বিরাট পুণ্যের বিনিময়ে তাকে তোমার নিকট থেকে উঠিয়ে নিয়েছেন। তুমি যদি পুণ্যের প্রত্যাশায় ধৈর্য ধারন কর, তাহলে বিরাট পুরষ্কার, অশেষ অনুগ্রহ এবং হিদায়াত তোমার জন্য থাকবে। তোমার অস্থিরতা ও হা-হুতাশ যেন তোমার পুরষ্কারকে বিনষ্ট করে না দেয়। এমন করলে তুমি অনুতপ্ত হবে। মনে রাখবে অস্থিরতা কোন মৃত ব্যক্তিকে ফিরিয়ে আনতে পারে না এবং কোন শোককে দূর করতে পারে না। যা হবার তা হয়েই গিয়েছে। ওয়াসসালাম।


اذكروا محاسن موتاكم وكفوا عن مساويهم. لكن يكره الافراط في مجحه لاسيما عند جنازته تعزية اهله وترغيبهم في الصبور.   (الدر المختار:2/239)