elektronik sigara

জামি‘আ রাহমানিয়া আরাবিয়া মাদরাসার ২ দিন ব্যাপী বার্ষিক মাহফিল, জামি‘আতুল আবরার মসজিদ প্রাঙ্গন বসিলাতে অনুষ্ঠিত হবে আগামী ৩০শে নভেম্বর, ২০১৯ শনিবার এবং ১লা ডিসেম্বর, ২০১৯ রবিবার

হযরতওয়ালা মুফতী মনসূরুল হক সাহেব দা.বা এর লিখিত সকল কিতাব পাওয়ার জন্য ক্লিক করুন

হযরতওয়ালা মুফতী মনসূরুল হক সাহেব দা.বা. এর সমস্ত কিতাব, বয়ান, প্রবন্ধ, মালফুযাত পেতে   ইসলামী যিন্দেগী  App টি সংগ্রহ করুন।

প্রতিদিন আমল করার জন্য “দৈনন্দিন আমল ও দু‘আসমূহ” নামক একটি গুরত্বপূর্ণ কিতাব আপলোড করা হয়েছে।

ইনশাআল্লাহ জামি‘আ রাহমানিয়া আরাবিয়া মাদরাসায় দাওয়াতুল হকের মাহফিল অনুষ্ঠিত হবে আগামী ২০ শে ডিসেম্বর, ২০১৯ ঈসায়ী।

সুখবর! সুখবর!! সুখবর!!! হযরতওয়ালা দা.বা. এর গুরত্বপূর্ণ ২ টি নতুন কিতাব বেরিয়েছে। “নবীজীর (সা.) নামায” এবং “খ্রিষ্টধর্ম কিছু জিজ্ঞাসা ও পর্যালোচনা”।  আজই সংগ্রহ করুন।

হযরতওয়ালা মুফতী মনসূরুল হক সাহেব দা.বা. এর নিজস্ব ওয়েব সাইট www.darsemansoor.com এ ভিজিট করুন।

অংশীদারিত্বের কুরবানী

তারিখ : ১৪ - ফেব্রুয়ারী - ২০১৮  

জিজ্ঞাসাঃ

আমরা জানি যে, একটি গরুর কুরবানীতে সাত জন অংশীদার হতে পারে। তবে অংশীদারদের সাত অংশের মাঝে ছয় অংশ ছয়জন পূর্ণ অংশের শরীক, আর দু’জন মিলে যদি এক অংশের শরীক হয় তাহলে কুরবানী সহীহ হবে কি-না?

 


জবাবঃ


গরু, মহিষ ও উট ইত্যাদির কুরবানীতে যেমন সাত অংশের বেশী জায়িয নয়, তেমনি সাত জনের বেশী অংশীদার হয়েও কুরবানী করা জায়িয হবে না। যদি কেউ এরুপ করে তাহলে কোন অংশীদারের কুরবানীই সহীহ হবে না। সুতরাং দুই বা ততোধিক ব্যক্তি মিলিতভাবে কুরবানীর পশুর সাত অংশের মধ্য হতে একটি অংশে শরীক হলেও কুরবানী জায়িয হবে না।


তবে উল্লেখিত মাসআলাটি ওয়াজিব কুরবানী ও নিজের নামে কুরবানীর ক্ষেত্রে প্রযোজ্য। কিন্তু অন্যের নামে নফল হলেও কুরবানীর ক্ষেত্রে একাধিক ব্যক্তি এক অংশে শরীক হতে পারে। যেমন একাধিক ব্যক্তি শরীক হয়ে গরুর সপ্তমাংশ রাসূলে আকরাম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের নামে কুরবানী করল অথবা চার পাঁচ ভাই মিলে পিতা-মাতার নামে ঈসালে সাওয়াবের উদ্দেশ্যে একটি ছাগল বা কুরবানীর গরুর সপ্তমাংশে শরীক হয়ে কুরবানী করল তাহলে এতে কোন প্রকার অসুবিধা নেই। বরং এরুপ অবস্থায় কুরবানী সহীহ হবে।


[প্রমাণঃ দুররে মুখতার ৬:৩১৫-৩২৬# খুলাসাতুল ফাতাওয়া ৪:৩১৫# আহসানুল ফাতাওয়া ৭:৫০৭# ইমদাদুল ফাতাওয়া ৩:৫৭৩# ফাতাওয়া মাহমূদিয়া ৪:২৮৮ ও ৩১৫# ফাতাওয়া রহীমিয়া ২:৯০# ফাতাওয়া মাহমূদিয়া ১৪:৩৩৬]


ولو كان لاخرهم اقل من سبع لم يجز عن احد.   (الدر المختار:6/315)