elektronik sigara

আগামী ইজতেমা ২০শে জুমাদাল উখরা, ১৪৪৪ হিজরী ‍মুতাবেক ১৩ই জানুয়ারী, ২০২৩ ঈসায়ী তারিখ শুক্রবার থেকে ২২শে জুমাদাল উখরা, ১৪৪৪ হিজরী মুতাবেক ১৫ই জানুয়ারী, ২০২৩ ঈসায়ী তারিখ রবিবার পর্যন্ত চলবে। অর্থাৎ ১৩,১৪,১৫ জানুয়ারী, ২০২৩। ইজতেমার ময়দানের ম্যাপ ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন

 

ইনশাআল্লাহ জামি‘আ রাহমানিয়া আরাবিয়া মাদরাসায় দাওয়াতুল হকের মাহফিল অনুষ্ঠিত হবে আগামী ২৬শে জুমাদাল উখরা, ১৪৪৪ হিজরী, ২০ই জানুয়ারী, ২০২৩ ঈসা‘য়ী, শুক্রবার (সকাল ৭-৮টা থেকে শুরু হবে ইনশাআল্লাহ)

হযরতওয়ালা দা.বা. কর্তৃক সংকলিত চিরস্থায়ী ক্যালেন্ডার ডাউনলোড করতে চাইলে এ্যাপের “সর্বশেষ সংবাদ” এ ভিজিট করুন।

হযরতওয়ালা মুফতী মনসূরুল হক সাহেব দা.বা এর লিখিত সকল কিতাব পাওয়ার জন্য এ্যাপের “সর্বশেষ সংবাদ” থেকে তথ্য সংগ্রহ করুন।

হযরতওয়ালা দা.বা. এর কিতাব অনলাইনের মাধ্যমে কিনতে চাইলে ভিজিট করুনঃ www.maktabatunnoor.com

হযরতওয়ালা মুফতী মনসূরুল হক সাহেব দা.বা. এর নিজস্ব ওয়েব সাইট www.darsemansoor.com এ ভিজিট করুন।

মানব জাতি আশরাফুল মাখলুকাত তথা সৃষ্টির সেরা জীব । পবিত্র কুরআনে আল্লাহ তা’আলা সুস্পষ্টভাবে ইরশাদ করেছেন- “আমি মানব জাতিকে শ্রেষ্ঠত্ব দান করেছি ।” (সূরাহ বনী ইসরাঈল আয়াত-৭০) শুধু তাই নয়; বরং তারা সর্বশ্রেষ্ঠ উম্মতও । এতদসম্পর্কে পরম করুণাময় আল্লাহ তা’আলা ইরশাদ করেন- “তোমরা সর্বশ্রেষ্ঠ উম্মত, তোমাদের উদ্ভব ঘটানো হয়েছে মানবজাতির কল্যাণের জন্য । তোমরা সৎকাজের নির্দেশ দান করবে ও অসৎ কাজে বাধা দিবে এবং আল্লাহর প্রতি ঈমান আনয়ন করবে ।” (সূরাহ আলে ইমরান, আয়াত-১১০)

উপরোক্ত আয়াতে মানব জাতিকে শ্রেষ্ঠ উম্মত ঘোষণা করার সাথে সাথে তাদেরকে শ্রেষ্ঠত্ব প্রদানের কারণও উল্লেখ করা হয়েছে । আর তা হচ্ছে মানুষকে সৎকাজের আদেশ করা ও অসৎ কাজের নিষেধ করা ।

মূলতঃ এ দায়িত্ব অর্পিত হয়েছিল আম্বিয়া কিরামের উপর । গোমরাহ ও পথভ্রষ্ট মানুষকে দ্বীনের পথে ফিরিয়ে আনার জন্য আল্লাহ তা‌‌’আলা যুগে যুগে প্রেরণ করেছেন লক্ষাধিক নবী-রাসূলগণকে । নবী প্রেরণ পরম্পরায় সর্বশেষে প্রেরিত হয়েছেন আমাদের নবী ও রাসূল হযরত মুহাম্মদ মুস্তফা সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়া সাল্লাম। তাঁর পর আর কোন নবীর আগমন ঘটবে না বিধায় এ সুমহান দায়িত্ব অর্পিত হয়েছে তাঁর উম্মতের উপর ফলে তারা লাভ করেছে সর্বশ্রেষ্ট উম্মতের মর্যাদা ।

কিন্তু দুঃখজনক হলেও সত্য যে, উম্মতে মুহাম্মদী তাদের এ গৌরবময় দায়িত্ব পালনে ব্যর্থ হওয়ার কারণে পৃথিবী জুড়েই চলছে অন্যায় অবিচার, হত্যা-লুন্ঠন, ছিনতাই-রাহাজানি, খুন-খারাবী সহ আরো নানা প্রকার মানবতা বিধ্বংসী কার্যকলাপ । উম্মতে মুহাম্মদী যদি পুনরায় তাদের এ দায়িত্ব যথাযথ রূপে পালনে সক্রিয় না হয়, তাহলে এ থেকে মুক্তি পাওয়া কোন ক্রমেই সম্ভব নয় । শ্রদ্ধেয় উস্তাদ মুফতী মাওলানা মনসূরুল হক সাহেবের এতদ সম্পর্কিত গুরুত্বপূর্ণ কিছু প্রবন্ধ ও প্রশ্নোত্তর বিভিন্ন সময়ে রাহমানী পয়গামে প্রকাশিত হযেছিল । বিষয়গুলির গুরুত্ব অনুধাবন করে হযরতের দু‘আ ও ইজাযত নিয়ে বিক্ষিপ্ত লেখাগুলি একত্রিত করে পুস্তিকাকারে প্রকাশ করতে পেরে আল্লাহ রাব্বুল আলামিনের দরবারে শুকরিয়া আদায় করছি । যারা দাওয়াতের কাজের সাথে জড়িত এবং যারা জড়িত না, আশা করি তাদের সকলের জন্যই এটি সমান উপকারী হবে ।